Blog Single

10 Apr

ফেসবুক অ্যাপ্স থেকে কেন ক্ষতি হতে পারে

এটা বলার অপেক্ষা রাখে না যে ফেসবুক অ্যাপ্স গুলো আপনাকে দারুণ বিনোদন দিতে সক্ষম। কিন্তু সেই সাথে এটাও সত্যি যে বেশীরভাগ অ্যাপ্স ক্ষতি সাধন করতেই তৈরী করা হয়েছে। কি ধরণের ক্ষতি তা নির্ভর করে অ্যাপ্স গুলো কে কেন তৈরী করছে তার উপর। অ্যাপ্স গুলো ফেসবুক কতৃক তৈরী করা নয়, তৃতীয় পক্ষ দ্বারা তৈরী এবং এগুলো তৃতীয় পক্ষের বিভিন্ন প্রয়োজনেই তৈরী করা হয়ে থাকে।

আসুন জেনে নেই অ্যাপ্স গুলো কি কি ধরনের ক্ষতি সাধন করতে পারে:

* এই অ্যাপ্সগুলো আপনার পাবলিক, ফ্রেন্ড অনলি এবং হিডেন সব ধরনের ফটোই চুরি করতে সক্ষম। যেসব ফটো ডেটিং এবং পর্ন সাইটএ আপনার অজান্তে ব্যবহার করা হয়। অনেক সময় আপনার পার্সোনাল তথ্য ও দিয়ে দেয় যা আপনার ফেসবুক প্রোফাইল থেকেই কালেক্ট করে।
অনেক সময় এই ছবি গুলো এডিট করে ব্লাকমেইল এর কাজেও ব্যবহার করা হয়ে থাকে। আর মাঝে মাঝে ছোটোখাটো এডিটিং করে আপনার ওয়ালেও পোস্ট করে থাকে।

* এই অ্যাপ্সগুলো আপনার ই-মেইল , ফোন নম্বর থেকে শুরু করে যাবতীয় তথ্য কালেক্ট করতে সক্ষম। আর এর মাধ্যমেই আপনার ই-মেইল এ অবাঞ্ছিত ই-মেইল পাঠানো শুরু করে।
এমন মানুষ পাওয়া দুষ্কর যে ই-মেইলএ প্রতিদিন ২০ থেকে হাজার খানেক স্পাম ই-মেইল পান না। কখনো ভেবে দেখেছেন কিভাবে স্পাম প্রেরণকারী আপনার ই-মেইল জানছে? এর উত্তরটি এখানেই। এভাবে অ্যাপ্স এর মাধ্যমে ই-মেইল কালেক্ট করে তা বিক্রয় করা হচ্ছে স্পামারদের কাছে।

* অনেক সময় এই অ্যাপ্সগুলো আপনার ওয়ালে বিভিন্ন ধরনের পোস্ট করে থাকে। সেই সাথে আপনার কিছু ফ্রেন্ডকেও ট্যাগ করে। ভেবে দেখেছেন এটা কতটা বিড়ম্বনার একটি কাজ? আপনি যখন কারো এরকম পোস্টে ট্যাগ হয়ে থাকেন আপনারই বা কেমন লাগে?
সবচেয়ে বড়ো সমস্যার শিকার তখনই হবেন যখন অ্যাপ্স গুলো নেতিবাচক ব্যাপারে আপনার ওয়ালে পোস্ট করবে। যা হতে পারে ধর্ম নিয়ে, হতে পারে ড্রাগস্ নিয়ে, হতে পারে সেক্স নিয়ে। যা অন্যকে নয়, আপনাকেই সবচেয়ে বেশী অপমানিত করে। আর এ ধরনের পোস্ট আপনারা সবাই কম বেশী ফেসবুকে দেখেছেন।

* এই অ্যাপ্সগুলো আপনার ম্যাসেজ দেখার এবং সংরক্ষণ করে রাখার ও ক্ষমতা রাখে। যখন আপনি ম্যাসেজ ব্যবহারই করেন ব্যাক্তিগত কথা বলার জন্য সেখানে অ্যাপ্সের এই ম্যাসেজ দেখার ক্ষমতাটি আপনার প্রাইভেসিতে আঘাত হানছে কিনা তা আপনিই ভালো বলতে পারবেন।
আর একটা সমস্যা হল অনেক সময় ম্যাসেজের মাধ্যমে অনেকেই বিশ্বস্ত মানুষের কাছে গোপন ফাইল , পাসওয়ার্ড এবং নানা ধরণের প্রয়োজনীয় ফাইল পাঠিয়ে থাকেন এবং সেগুলো এই অ্যাপ্সগুলো সংরক্ষণ করে নিচ্ছে। ফলাফল বিশ্বস্ত মানুষই আপনার ভুলে আপনার বিশ্বাস হারাচ্ছে।

* অনেক সময় এই অ্যাপ্সগুলো ওয়ালে এমন কিছু প্রশ্ন করে থাকে যেগুলো সাধারণত অনলাইন একাউন্টগুলোতে নিরাপত্তামূলক প্রশ্ন হিসেবে দেয়া থাকে এবং উত্তরগুলো পাসওয়ার্ড রিসেট করতে প্রয়োজন পরে।
আর অ্যাপ্সগুলোর মাধ্যমে নিজের অজান্তে আপনি হ্যাকারকে সেই তথ্যগুলো দিয়ে দিচ্ছেন। যেমন আপনার প্রিয় বন্ধু কে?

* এই অ্যাপ্সগুলো অনেক সময় অটোমেটিক ভাবেই বিভিন্ন গ্রুপে, ফ্রেন্ডের ওয়ালে বা ম্যাসেজে স্পামিং করে থাকে।
আর এর ফলে আপনার ফ্রেন্ডের যদি ক্ষতি হয় তার দায়ও আপনার উপর বর্তাবে। অনেকেতো মনে করবে আপনাকে বিশ্বাস করায় তাদের এই ক্ষতি হয়েছে।

* এই অ্যাপ্সগুলো শুধু আপনারি নয়, আপনার মাধ্যমে আপনার ফ্রেন্ডের তথ্যও সংরক্ষণ করছে। অর্থাৎ আপনি আপনার ফ্রেন্ডেরও ব্যাক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিতে সাহায্য করছেন। যার মাধ্যমে আপনি আপনার ফ্রেন্ডেরই ক্ষতিসাধন করছেন।

* আরেকটি ছোটো তথ্য। এই অ্যাপ্সগুলো ফেসবুকের ভিতরে কাজ করলেও অ্যাপ্সগুলো ফেসবুকের ভিতরে নেই। এগুলো বাহিরে অবস্থান করে। অর্থাৎ আপনি শুধুমাত্র ফেসবুকের মাধ্যমে অ্যাপ্সের ওয়েবসাইটে জয়েন করছেন।

* কেউ বিনালাভে কিছুই করতে আগ্রহী নয়। আর এই অ্যাপ্সগুলো তৈরী করতেও প্রচুর টাকা ব্যয় হয়। সেই টাকা তুলতে তো হবে। নিজেই একবার খুঁজে বের করতে চেষ্টা করুন তারা ইনকামটা কোথা থেকে পাচ্ছে।

* কিছু গেমসও এই কাজে লিপ্ত। তবে সব গেমস নয়। আর সেসব গেমসের ইনকাম আসে গেমসের দুপাশে থাকা বিজ্ঞাপন থেকে। আর অনেক বিশ্বস্ত অ্যাপ্সও কিন্তু আছে। আর সেগুলোর বেশিরভাগই পেইড। অর্থাৎ টাকার বিনিময়ে ব্যবহার করতে পারবেন। এ ধরণের অ্যাপ্সগুলো সাধারণত এসব কাজ করে না।

যারা এই অ্যাপ্সগুলো তৈরী, মার্কেটিং এবং গবেষণার সাথে জড়িত তাদেরকে জিজ্ঞেস করলেই আপনারা আমার কথাগুলোর সত্যতা পেয়ে যাবেন। যদিও আমি বেশীরভাগ পয়েন্টেই আপনাদেরকে প্রমাণ নিয়ে আভাস দিয়ে দিয়েছি। বাকিটা আপনার উপর . . . . .

অ্যাপ্সগুলো রিমুভ করার নিয়ম জানতে নিচের পোস্ট পড়ুন।

কম্পিউটার থেকে রিমুভ করতে > How Do I Remove Apps Installed On Facebook

মোবাইল থেকে রিমুভ করতে > How Do I Remove Apps Installed On Facebook From Mobile

Related Posts

Leave A Comment